ডেস্ক নিউজঃ একাদশ সংসদ অধিবেশনে সংসদ কক্ষে সদস্যদের আসন বিন্যাসে বড় ধরনের কোনো পরিবর্তন আসছে না; তবে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী-উপমন্ত্রীরা সবাই একদিকে বসবেন।

এছাড়া আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা যারা এবার মন্ত্রী হননি তারা আগের মতো সামনের সারিতেই বসবেন। তোফাযেল আহমেদ, আমির হোসেন আমু, মতিয়া চৌধুরী, সাজেদা চৌধুরী গত সংসদের মতোই প্রধানমন্ত্রীর ডান দিকে বসবেন।

মন্ত্রীদের প্রধানমন্ত্রীর পেছনের সারিতে রাখা হচ্ছে, তার পেছনে প্রতিমন্ত্রীরা।

আসন বিন্যাস সম্পর্কে স্পিকার শিরীন শারমিন বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পেছনে তার মন্ত্রীদের দিলে উনার জন্য সুবিধা হয়। উনি নির্দেশনা দিতে পারেন। আমরা এবার চেষ্টা করেছি প্রধানমন্ত্রীর পেছনে মন্ত্রীদের দিতে তার উপরে প্রতিমন্ত্রীদের দিতে। তাহলে একদিকে গোছানো হয়ে গেল।”

“প্রথম সারিতে যারা সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ছিলেন, যারা মন্ত্রী হননি তারা ওভাবেই থাকবেন। সেখানে পরিবর্তন হচ্ছে না।”

দশম সংসদে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগে স্পিকারের আসনের সামনের দিকে বসলেও এবার তার আসন পরিবর্তন হচ্ছে। তাকে প্রধানমন্ত্রীর ডান দিকে আনা হচ্ছে।

প্রথম সারিতে সৈয়দ আশরাফের আসনে এবার বসছেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। আগের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের আসনে আসছেন নতুন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

প্রধানমন্ত্রীর ঠিক পেছনের আসনে বসবেন নতুন প্রধান হুইপ। তার পাশে আইনমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, রেলমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী। 

আওয়ামী লীগের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন এবং জাসদের হাসানুল হক ইনু গতবারের মতো আগের আসনেই থাকবেন। তারা দুই জন স্পিকারের বাম দিকে বিরোধী দলের আসনের পাশে প্রথম সারিতে বসতেন।

এছাড়া কে, কতবার নির্বাচিত হয়েছে, দলীয় পদ, সাবেক মন্ত্রী, জেলার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এসব বিবেচনা করে আসন বিন্যাস করা হচ্ছে বলে জানান স্পিকার।

বয়সে তরুণ এবং প্রথমবার নির্বাচিত সদস্যদের সবার উপরে আসন দেওয়া হচ্ছে। প্রথমবার নির্বাচিতদের মধ্যে যারা বয়সে প্রবীণ, তাদের নিচের দিকে আসন দেওয়া হচ্ছে।

সূত্রঃ bdnews24.com

শেয়ার করুনঃ