স্পোর্টস ডেস্কঃ ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১৭ রানে হারিয়ে বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের শিরোপা জিতে নিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। বিপিএলে এটি তাদের দ্বিতীয় শিরোপা।

শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) টসে জিতে কুমিল্লাকে ব্যাট করতে পাঠায় ঢাকা। ব্যাট করতে নেমে শুরুর ধাক্কার পরও তামিম ইকবালের ৬১ বলে ১৪১ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে ভর করে ১৯৯ রান তুলে কুমিল্লা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৯ ওভারেই ১ উইকেট ১০০ রান তুলে ফেলে ঢাকা। এরপরই হঠাৎ ঢাকার ইনিংসে ধস নামে। ৪০ রান করতে চলে যায় তাদের ৬ উইকেট। শেষ অবধি ২০ ওভার খেলে ১৮২ রান তুলতে সক্ষম হয় ঢাকা।

সন্ধ্যা ৭টায় মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে কুমিল্লা ও ঢাকার মধ্যকার ফাইনালটি শুরু হয়। ম্যাচে দ্বিতীয় ওভারেই কুমিল্লার এভিন লুইসকে ৬ রানে ফেরান রুবেল। এরপর তামিম ও বিজয় মিলে যোগ করেন ৮৯ রান। ১২তম ওভারে সাকিবের বলে বিজয় ২৪ রান করে ফিরলে ভাঙে এই জুটি। পরের বলেই রানআউট হন শামসুর রহমান।

এরপর শুরু হয় তামিম তাণ্ডব। ইমরুল কায়েসকে সাথে নিয়ে ঢাকার বোলারদের শাসন করতে থাকেন তিনি। একের পর এক বল পার করতে থাকেন বাউন্ডারি লাইন। ১৪ ওভার শেষে যেখানে কুমিল্লার রান ছিল ১১৪, সেখানে ১৮ ওভার শেষে রান দাঁড়ায় ১৭৮। মানে ৪ ওভারে আসে ৬৪ রান। এই রানের মধ্যে ইমরুল করেন মাত্র ৮ রান। বাকিটা আসে তামিমের ব্যাট থেকে। বাকি দুই ওভারে এই ব্যাটসম্যান নেন আরও ২১ রান।

তামিমের এই তাণ্ডবে ২০ ওভার খেলে ৩ উইকেটে ১৯৯ রান তুলতে সক্ষম হয় কুমিল্লা। তামিম ৬১ বলে ১৪২ রান করে অপরাজিত থাকেন। তিনি ১০টি চার আর ১১টি ছয় মেরেছেন। ইমরুল কায়েস করেছেন ২১ বলে ১৭ রান।

জবাবে প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে রাআউট হন সুনিল নারাইন। তবে এরপর রনি তালুকদারও উপুল থারাঙ্গা দলকে টেনে নিতে থাকেন। ৪৬ বলে এই দু’জন তোলেন ১০২ রান।

২৭ বলে ৪৮ রান করে থারাঙ্গা নবম ওভারের শেষ বলে থিসারার শিকার হলে ভাঙে এই জুটি। এরপর ১২তম ওভারের প্রথম বলে সাকিব বিদায় নেন ৩ রান করে। তবে তখনও দলকে জয়ের পথেই টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন রনি। কিন্তু বিপত্তিটা বাধে ১৩তম ওভারের প্রথম বলে। মিডঅনে ঠেলে রান নিতে গিয়ে তিনি শিকার হন রানআউটের।

তার আগে অবশ্য তিনি ৩৮ বলে ৬৬ রান করে যান। তখনও ম্যাচটা ঢাকার হাতেই ছিল। তবে এরপর মাঠে আসা রাসেল ও পোলার্ডের দায়িত্বহীন ব্যাটিংয়ে ম্যাচ হাত থেকে ফসকে যায়।

লং অনে মারতে গিয়ে ওহাব রিয়াজকে ক্যাচ দেন রাসেল। তখন ঢাকার স্কোর দাঁড়ায় ১৩২-৫। বোর্ডে ৯ রান যোগ করেই বিদায় নেন পোলার্ডও। পরের ওভারেই ০ রানে ফেরেন শুভাগত হোম।

বাকি সময় সোহান ও মাহমুদুল লড়াই চালালেও সেটা যথেষ্ট ছিল না। যে কারণে শেষ অবধি ১৭ রানে হারতে হয় ঢাকাকে।

শেয়ার করুনঃ