নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বিয়ানীবাজারে খুনের আসামীদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টায় বিয়ানীবাজার পৌরশহরে উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণ’র ব্যানারে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়।

মানবন্ধনে পৌরশহরে প্রকাশ্য দিবালোকে সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত দুই তরুণ আনোয়ার হোসেন ও হোসেন উদ্দিনের ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করা হয়। অন্যথায় বৃহত্তর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দেন বিক্ষুব্ধ জনগণ।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৫ শে নভেম্বর দুপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রাহেল আহমদ সায়েম নামের এক সন্ত্রাসী ছুরিকাঘাতে পৌড়শহরের মোকাম রোড এলাকায় খুন হন আনোয়ার হোসেন। নিহত আনোয়ার হোসেন বিয়ানীবাজার পৌরশহরের সুপাতলা এলাকার সিরাজ উদ্দিন সিরাই মিয়রা কনিষ্ঠ পুত্র এবং ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসেনের ছোটভাই। এ ঘটনায় নিহতের বড়ভাই দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে ঘাতক পৌরশহরের কসবা কোনাপাড়া গ্রামের পঙ্খি মিয়ার পুত্র রাহেল আহমদ সায়েমকে প্রধান আসামী করে ১৮জনের বিরুদ্ধে বিয়ানীবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে মামলার এজাহারভুক্ত ৪নং আসামী পৌড়শহরের কসবা পন্ডিতপাড়া এলাকার ইসলাম উদ্দিনের পুত্র উজ্জ্বল আহমদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

২০১৮ সালের ৩ ডিসেম্বর বিকেলে বিয়ানীবাজার পৌরসভার নিদনপুর গ্রামের প্রবাসী কমর উদ্দিনের পুত্র ফাহিম আহমদ (১০) বাইসাইকেল নিয়ে রাস্তায় বের হলে তাকে লাথি দেয় একই এলাকার সুমন আহমদ। একই সময়ে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এ ঘটনা দেখে প্রতিবাদ করলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শিক্ষার্থী হোসেন উদ্দিনের মাথা লক্ষ্য করে ভারি বস্তু দিয়ে আঘাত করে একই এলাকার সুমন। এতে ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারান হোসেন। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তার শারিরীক অবস্থা অবনতি হওয়া পরে সিলেটের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৫ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ঐদিনই বিয়ানীবাজার থানায় ঘাতক সুমনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে নিহত কলেজ শিক্ষার্থী হোসেনের পরিবার। এ হত্যা মামলার একমাত্র আসামী সুমন আহমদকে গত ৯ জানুয়ারি বড়লেখা উপজেলার মোহাম্মদনগর এলাকা থেকে স্থানীয় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আটক করে পুলিশ। ধৃত সুমন আহমদ (১৮) বিয়ানীবাজার পৌরশহরের নিদনপুর এলাকার মুহিব আলীর পুত্র।

শেয়ার করুনঃ