‘সোনালি কাবিন’-এর কবি আল মাহমুদ আর নেই। কয়েকদিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান এই ক‌বি চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

শুক্রবার রাত ১১টার দিকে রাজধানীর ধানমন্ডির ইবনে সিনা হাসপাতালে আল মাহমুদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলে জানিয়েছেন কবির পারিবারিক বন্ধু আবিদ আজম।

তিনি জানান, রাত ১০টার দিকে কবিকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়। পরে ১১টা ৫ মিনিটের দিকে লাইফ সাপোর্ট খুলে নেওয়া হয়।

এর আগে ৯ ফেব্রুয়ারি, শনিবার রাতে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে ইবনে সিনা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে ডাক্তারদের পরামর্শে তাকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

আল মাহমুদ বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। খুব বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ায় হাসপাতালে ভর্তির পর কবিকে প্রথমে সিসিইউ ও পরে আইসিইউতে নেওয়া হয়।

বিংশ শতকের বিখ্যাত কবি আল মাহমুদ। তাঁর জন্ম ১৯৩৬ সালের ১১ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মোড়াইল গ্রামে। কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানার সাধনা হাই স্কুল এবং পরে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড হাই স্কুলে পড়াশোনা করেন এই কবি। ১৯৫৪ সাল অর্থাৎ ১৮ বছর বয়স থেকে তার কবিতা প্রকাশ পেতে থাকে।

আল মাহমুদের কিছু উল্লেখযোগ্য বইগুলো হলো, লোক লোকান্তর, কালের কলস, সোনালি কাবিন, মায়াবী পর্দা দুলে উঠো, কাবিলের বোন (উপন্যাস), পানকৌড়ির রক্ত (গল্পগ্রন্থ) ইত্যাদি। পেয়েছেন একুশে পদক, ফিলিপস সাহিত্য পুরস্কার, অগ্রণী ব্যাংক শিশুসাহিত্য পুরস্কার, ফররুখ স্মৃতি পুরস্কার, জীবনানন্দ দাশ স্মৃতি পুরস্কারসহ আরও অনেক পুরস্কার।

শেয়ার করুনঃ