আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে বন্দুকধারীর অতর্কিত হামলায় ৫০ জনের প্রাণহানীর ঘটনার এক সপ্তাহ পার হলো আজ। হামলার এক সপ্তাহ পর আজ স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায় ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদের পাশে জুমার নামাজ আদায় করেছেন হাজারো মসুল্লি।

এদিকে, নিউজিল্যান্ডের পাশাপাশি ইতালির রাজধানী রোম-এর খোলা মাঠেও জুমার নামায আদায় করেন হাজারো ধর্মপ্রাণ মুসল্লি। স্থানীয় একটি সামাজিক সংগঠনের ব্যবস্থাপনায় রোমের লার্জো প্রেনেস্তে-এর খোলা মাঠে মাইকে আযান বাজিয়ে জুমার নামায আদায় করেন মুসল্লিগণ।

শ্বেতাঙ্গ বর্ণবাদীর হামলায় ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে অর্ধশত মুসল্লি নিহত হওয়ার এক সপ্তাহ পর আজানের ধ্বনিতে মুখরিত ছিলো পুরো নিউজিল্যান্ড। মুসলমানদের প্রতি সংহতি জানাতে সকল প্রচারমাধ্যমেও প্রচার করা হয় জোহরের আজান।

নিউজিল্যান্ডের পাশাপাশি ইতালিতেও এমন আয়োজন পুরো বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। ইতালির ইতিহাসে খোলা মাঠে আজান বাজিয়ে নামায আদায়ের ইতিহাস এটাই প্রথম। ক্রাইস্টচার্চের শহীদদের রক্ত ইউরোপসহ সারা বিশ্বে ইসলাম প্রচারকে তরান্বিত করবে বলে আশা প্রকাশ করেন নামাজে অংশ নেয়া মুসল্লিগণ।

গত শুক্রবার জুমার নামাজের সময় আল নুর ও লিনউড মসজিদে হামলা চালায় ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারেন্ট। মসজিদে ঢুকেই মুসল্লিদের ওপর এলোপাতাড়ি গুলি চালায় সে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ভয়াবহ হামলার শিকার হন নামাজরত মুসল্লিরা। এতে অর্ধশত মুসল্লি শহীদ হন।

ওই হামলার ঘটনায় শোক প্রকাশ করে আজ আল নুর মসজিদের কাছে হেগলি পার্কে কয়েক হাজার মানুষের সাথে যোগ দিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডার্নও।

মুসলিম সম্প্রদায়কে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, নিউজিল্যান্ড আপনাদের দুঃখে ব্যাথিত। আমরা সবাই এক। এ সময় মুসলিমদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টার দিকে আজান এবং জুমার নামাজ রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন এবং রেডিওতে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়েছে। একইসঙ্গে রাষ্ট্রীয়ভাবে হতাহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দুই মিনিট নীরবতাও পালন করেছে নিউজিল্যান্ডের মানুষ।

শেয়ার করুনঃ