ইংল্যান্ডে ঘুমন্ত অবস্থায় এক মহিলাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে এক অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে শাস্তির মুখে পড়ছেন ওই ক্রিকেটার। ইতোমধ্যে ইংল্যান্ডের ওর্সেস্টর ক্রাউন আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন।

শুক্রবার আদালতের রায় ঘোষণার সময় মুখ ঢেকে বসেছিলেন অ্যালেক্স হেপবার্ন নামে ২৩ বছরের ওই ক্রিকেটার। আর দোষী ঘোষণার পর কেঁদে ফেলেন তিনি।

ক্রিকেট খেলার সুবাদে ২০১৩ সালে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমান অ্যালেক্স হেপবার্ন। কাউন্টি খেলেন ওস্টারশায়ারের হয়ে। অভিযোগকারীর নারীর দাবি, ২০১৭ সালের ১ এপ্রিল, ঘটনার সেই রাতে হেপবার্ন ও তার ক্লাব সতীর্থ জোই ক্লার্ক একই হোটেলে ছিলেন।

সেই রাতেই ধর্ষিত ওই নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হন হেপবার্নের সতীর্থ ক্লার্ক। রাত গভীর হলে কোনো এক কাজে রুমের বাইরে যান ক্লার্ক। এই সুযোগে ক্লার্কের বিছানায় ঘুমিয়ে থাকা ওই নারীকে ধর্ষণ করেন হেপবার্ন।

যদিও ওই নারীর ইচ্ছাতেই শারীরিক সম্পর্ক হয়েছিল বলে দাবি হেপবার্নের। তার ভাষ্য, ‘ওই রাতে ক্লার্কের ঘরে আলো ছিল না। আমি ওর বিছানায় যাওয়ার আগে বুঝতেই পারিনি অন্য কেউ আছে।

সে গড়িয়ে আমার দিকে চলে আসে এবং চুমু খায়। আমি নিশ্চিত করেই বলতে পারি ও তখন জেগেই ছিল এবং আমাকে চুমুও খেয়েছিল। অবশ্য প্রায় ২০ মিনিট পর সে বলেছিল, ‘তুমি আমাকে ধর্ষণ করেছ!’

শেয়ার করুনঃ