বিশেষ সংবাদদাতা: গোলাপগঞ্জের ঢাকাদক্ষিণ বাজারের ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান (মিয়ার উদ্দিন)কে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। বর্তমানে তিনি সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের দত্তরাইল গ্রামের মৃত মদরিস আলীর ২য় পুত্র ঢাকাদক্ষিণ বাজারের জনতা পোল্ট্রির স্বত্বাধিকারী হাবিবুর রহমান (মিয়ার উদ্দিন)কে রাতের আধাঁরে দুর্বৃত্তরা গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায়।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ এপ্রিল (মঙ্গলবার) আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সে তার নিজ বাড়ি থেকে বাহির হন। দীর্ঘক্ষণ ঘরে না ফিরলে রাত ৯ টার সময় তার পরিবারের সদস্যরা তাকে ফোন দিলে সংযোগ বন্ধ পাওয়া যায়। তখন পরিবারের সদস্যরা আত্মীয় স্বজনের ফোনে খুঁজাখুজি শুরু করেও কোথাও খোঁজ পাননি।

পরে মধ্যরাতে খোঁজাখুজি করলে পরিত্যাক্ত পোল্ট্রি খামারে রক্তের দাগ দেখতে পান। রক্তের দাগ দেখে সন্ধেহের দানা বাঁধে এবং খামারের পিছনে গিয়ে হাবিবুর রহমানের জুতা পড়ে থাকতে দেখতে পান। তখন তাদের পরিবারের সন্ধেহ আরো ঘনীভূত হয়। তারা আরো খুঁজাখুজির পর খামারের পশ্চিম পাশে পুকুর পারের ঝুপড়ি থেকে শব্দ শুনতে পান। শব্দ শুনে পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে গেলে হাবিবুর রহমানকে (মিয়ার উদ্দিনকে) গলা কাটা অবস্থায় দেখতে পান।

পরিবারের সদস্যরা প্রথমে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি দেখে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়া হয়।

খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হন স্থানীয় ইউপি সদস্য রেজাউল করিম রাজু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মনসুর আহমদসহ স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ। ঘটনাটির খবরে এলাকার জনগণের মনে আতংক বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে গােলাপগঞ্জ মডেল থানার ডিউটি অফিসার মামুন আহমদ জানান, ঘটনা সম্পর্কে আমরা অবগত হয়েছি। তবে এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ ভিকটিমের পরিবার দেয়নি। অভিযোগ পেলে অবশ্য আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

শেয়ার করুনঃ