বালাগঞ্জ(সিলেট)প্রতিনিধিঃ সিলেটের বালাগঞ্জে এক নারীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে রহস্যের ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। ওই নারীর নাম রুপিয়া বেগম (৪৫) তিনি উপজেলার নাসিয়ার পুর গ্রামের জবাদ উল্ল্যাহ ২য় মেয়ে।

এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায় ভুমি সংক্রান্ত বিরোধের জের দরে সৃষ্ট মারামারি থেকে ওই নারীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

সূত্র মতে জবাদ উল্ল্যাহ ও তার ভাতিজা নজরুল ইসলাম (বর্তমান ইউপি সদস্য)-এর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে ভুমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে ঝগড়াঝাটি চলছে। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার(১৬এপ্রিল) আনুমানিক সকাল ৮ঘঠিকায় সময় নজরুল মেম্বার গং ও জবাদ উল্ল্যাহ গং এর মধ্য সংঘর্ষ বাঁধে।

এসময় উপর্যপুরী আঘাতে রুপিয়া বেগম মাটিতে ঢলে পড়েন।

ঘটনার পর বালাগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনারস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

এব্যাপারে পারস্পরিক বিরুদ্ধপূর্ণ বক্তব্য পাওয়া গেছে।

মৃত্য মহিলা রুপিয়া বেগমের ভাই রিপন মিয়া বলেন, ঝগড়া বিবাদ থেকে আঘাত প্রাপ্ত হয়ে এ মৃত্যুর ঘঠনা ঘটে। অপর ভাই মোতাহির আলী বলেন, প্রতিপক্ষের লাথির আঘাতে এঘটনা ঘটে।

এসময় তিনি সংবাদকর্মীদের সাথে মোতাহির আলী খোলামেলা কথা বলতে চাইলে তাকে জোরপূর্বক টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

পার্শ্ববর্তী বাড়ির বাসিন্দা আং নুর বলেন ভুমি সংক্রান্ত ভাগবাটোয়ারা নিয়ে দুই ঘরের বাসিন্দাদের মধ্যে সংঘর্ষে ঝগড়াবিবাদের সাথে সাথে ওই নারি স্ট্রোক করেন।

স্থানীয় শালিসি ব্যক্তিত্ব সাবেক মেম্বার আনহার মিয়া বলেন দীর্ঘদিন থেকে তাদের দুইপরিবারে মধ্যে ভূমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল,আজও দুপক্ষের মধ্যে ঝগড়াঝাটি হয় এবং এ মৃত্যুর দূর্ঘটনা ঘটে বলে শুনতে পেরিছি ।

এব্যাপারে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম এর মুঠোফোনে কল দিয়ে, সাংবাদিক পরিচয় দিলে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন ও কল কেটে দেন।

বালাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গাজী আতাউর রহমান বলেন দুইপক্ষের মধ্যে ঝগড়াঝাটির ঘটনা ঘটেছে। এতে পারস্পরিক বক্তব্য পাওয়া গেছে এক পক্ষ এটাকে হত্যা বলছেন অপর পক্ষ স্বাভাবিক মৃত্যু দাবী করছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসলে এর ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

শেয়ার করুনঃ