ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি:: সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার আওতাধীন ফেঞ্চুগঞ্জ সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে অসহায় ও মধ্যবিত্ত পরিবারের কাছে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন ছাত্রলীগের কর্মীরা।

গত ২০শে এপ্রিল রাতে ফেঞ্চুগঞ্জ সদর ইউনিয়নের বিভিন্ন পরিবারের ঘরের দরজার সামনে খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট রেখে কড়া নাড়া দিয়ে ছবি না তুলেই চলে আসেন। আর তাতে কেউ কাউকে দেখতে না পাওয়ায় গোপন থাকছে পরিচয়।

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মেহরাব হোসেন জুনেলের অর্থায়নে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সৌরভ দেবনাথ, সাংগঠনিক সম্পাদক দীপ ভৌমিক, সদস্য কামরুল হাসান।

দীপ ভৌমিক বলেন, সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত। বাংলাদেশও তার বাহিরে নয়, কিন্তু আমাদের দেশ মধ্যমআয়ের দেশ। সবাই কাজকর্ম করে খায়। এই পরিস্তিতিতে এইসব নিম্ন আয়ের মানুষজন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। তাই তাদের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করতে চাইলে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মেহরাব হোসেন জুনেল আমাদেরকে সাহস দেন এবং আর্থিকভাবে সহযোগিতা করেন। তাই আমরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌছে দিচ্ছি।

মিজানুর রহমান বলেন, আমরা ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের অন্তর্ভুক্ত। আমাদের উপজেলা ছাত্রলীগ সিলেট-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এম,পি নির্দেশনা মোতাবেক করোনাভাইরাস মোকাবেলায় কাজ করে যাচ্ছে। আর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুনেদ আহমদ, সহ-সভাপতি মেহরাব হোসেন জুনেল ও সাধারণ সম্পাদক এ এম ফারহান সাদিক যেভাবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে কাজ করে যাচ্ছেন তাতে ফেঞ্চুগঞ্জের অসহায় মানুষের মধ্যে স্বস্তি দেখছি এবং তাদের নির্দেশনায় আমরা ফেঞ্চুগঞ্জ সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়ে আসছি।

এছাড়া জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং কোন ফটোসেশন ছাড়াই আমরা অসহায় মানুষের কাছে খাবার পৌঁছে দিচ্ছি।

তিনি আরোও বলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মেহরাব হোসেন জুনেলের আর্থিক সহায়তা আমরা সাহায্যের হাত বাড়াতে পেরেছি। আর আমরা সবাই সচেতন রয়েছি এবং আমাদের প্রতিবেশীকেও সচেতন থাকতে উৎসাহীত করছি।

খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল ১০ কেজি, পিয়াজ ২ কেজি, আলু ৩ কেজি, ডাল ১ কেজি, তেল ১ লিটার, চানা ২ কেজি, লবন ১ কেজি, খেজুর ১ কেজি এবং সাবান।

এ বিষয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুনেদ আহমদ বলেন, এই দুর্যোগে মানুষ খাদ্যের অভাবে যেন কষ্ট না পায় সে জন্য আমরা সংগঠনের সকলেই সাধ্যমতো মানুষগুলোর পাশে থাকার চেষ্টা করে চলেছি।

উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জুনেল জানান, করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা ও সিলেট ৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী’র দিক নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা দিনমজুর ও অসহায়দের পাশে আছি। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা তাদের পাশে থাকবো।

শেয়ার করুনঃ