ছামি হায়দার,ফেঞ্চুগঞ্জ:: করোনা ভাইরাসের থাবায় জনজীবন থমকে দাঁড়িয়েছে। এর প্রভাবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ফলে দুর্বিষহ দিন কাটাচ্ছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। আর এই সময় তাদের জন্য আরো সমস্যা হয়ে উঠেছে দোকান ভাড়ার টাকা।

বুধবার (২২ এপ্রিল) সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছাড়া বন্ধ রয়েছে অন্য সবকিছুর দোকান। এমন পরিস্থিতিতে বাজারের বেশিরভাগ দোকান বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা।

ফেঞ্চুগঞ্জ বাজারের কাপড়ের ব্যবসায়ী সুমন বলেন ‘দোকান বন্ধ, ব্যবসা নেই। আমার দোকান ভাড়া ২৫০০ টাকা। প্রতিদিন ১২০০-১৫০০টাকা বিক্রি হতো। কিন্তু এতদিন থেকে দোকান বন্ধ, সরকারি নিষেধ তো মানতে হবে। দোকান ভাড়া কিভাবে দিবো চিন্তায় আছি।’

আকুল শাহ শপিং সিটির ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলাম খান লিমন বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের মহামারির কারণে দেশের অনেকেই দোকান ও বাসা ভাড়া মওকুফ করছেন। এভাবে যদি আমাদের ফেঞ্চুগঞ্জের দোকানের মালিকরা সদয় দৃষ্টি দেন তাহলে আমরা ব্যবসায়ীরা কিছুটা হলে চিন্তামুক্ত থাকতে পারবো।’

এদিকে, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ফেঞ্চুগঞ্জের আব্দুল কাদির রাজন নামের এক প্রবাসী নিজের মালিকানাধীন এ ছত্তার শপিং কমপ্লেক্সের সকল ব্যবসায়ীর দোকানভাড়া গত মার্চ মাসের অর্ধেক মওকুফ করেন। তবে চলতি এপ্রিল মাসের ভাড়া মওকুফের কোন ঘোষণা এখনো দেননি এই প্রবাসী।

এ ছত্তার শপিং কমপ্লেক্সের ম্যানেজার গোপাল চক্রবর্তী জানান, এ ছত্তার শপিং কমপ্লেক্সের ব্যবসায়ীদের দোকানভাড়া গত মার্চ মাসের অর্ধেক মওকুফ করা হয়েছে। তবে চলতি এপ্রিল মাসের ভাড়া মওকুফের কোন সিন্ধান্ত এখনো নেওয়া হয়নি।

শেয়ার করুনঃ