গোলাপগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি: গোলাপগঞ্জের বাদেপাশা ইউনিয়নের নোয়াই গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় একজন আহত হয়েছে। রবিবার ( ১৮ এপ্রিল ) বেলা আনুমানিক ৩ টা ৩০মিনিটের সময় এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগসূত্রে জানা যায়।

১৯ এপ্রিল উপজেলার উত্তর বাদেপাশা ইউপির আমকোনা গ্রামের আব্দুন নুরের ছেলে হোসেন আহমদ বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ-সহ আরো ২/৩ জনকে অজ্ঞাত অভিযুক্ত করে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার কুশিয়ারা পুলিশ ফাঁড়িতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযুক্তরা হলেন ইছরাব আলীর ছেলে ইলিয়াস আলী (৩৬), ইলিয়াস আলীর ছেলে লিমন আহমদ (২০) ও ইমন আহমদ (১৮) এবং ইলিয়াস আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৩৮) ।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ১৮(এপ্রিল ) রবিবার বিকালে নোয়াই গ্রামের খালেদ আহমদ একই বাড়ির লিমন আহমদ বাড়ির কাদা ও পানি যাওয়ার পাইপের মুখ মাটি দিয়ে বন্ধ করে দিলে আব্দুন নূর মিয়ার ছেলে খালেদ আহমদের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় আব্দুন নূর মিয়া ছেলে খালেদ আহমদকে আনতে গেলে লিমন আহমদ, ইলিয়াস আলী, ইমন সহ আরো অজ্ঞাতনামা ২/৩ জন দেশিয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আব্দুন নুর মিয়ার উপর হামলা করে। এতে দায়ের কোপে আব্দুন নূর মিয়ার (৬০) হাতের আঙ্গুল কেটে মাটিতে পড়ে যায় এবং ছেলে হোসেন আহমদ (২২) কে এলোপাতাড়ি মারধর করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে । তাৎক্ষনিকভাবে স্থানীয়রা তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এবিষয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা কুশিয়ারা পুলিশ ফাঁড়ির তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ কামরুল ইসলাম বলেন, থানায় অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে

শেয়ার করুনঃ