জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস) কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকাই সিনেমার এক সময়ের জনপ্রিয় নায়ক হেলাল খানের পিতা আব্দুন নুর খান করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন, (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ১০০ বছর।

হেলাল খানের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের লং আইল্যান্ড গুড সামারিটান হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা নিচ্ছিলেন হেলাল খানের বাবা। রোববার বাংলাদেশ সময় বেলা ১১টার দিকে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলে জানিয়েছেন জাসাসের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফ হোসেন। তিনি জানান, হেলাল খানের বাবা যুক্তরাষ্ট্রে মারা গেছেন। তার ভাই ও ভাইয়ের স্ত্রীও করোনায় আক্রান্ত। তবে তারা সুস্থ হওয়ার পথে।

এর আগে হেলাল খান তার বাবা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়ে তার জন্য দোয়া চেয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি পোস্ট দেন। সেখানে তিনি লেখেন, আমার বাবা মাওলানা আব্দুন নুর খান করোনায় আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের একটি হাসপাতালে আইসিইউতে (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে) চিকিৎসাধীন। বাবার জন্য দোয়া চেয়ে হেলাল খান সেই পোস্টে আরও লেখেন, তার ছোট ভাই মাহবুব খান ও তার স্ত্রী নাসরিন মুন্নিও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে তারা দুজন অনেকটাই সেরে উঠার পথে।

এদিকে হেলাল খানের পিতৃবিয়োগের খবরে শোক প্রকাশ করেছেন সিনেমাপাড়ার মানুষেরা। সবাই বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেছেন।

প্রসঙ্গত, বাংলা সিনেমায় হেলাল খান হাছন রাজা নামে সমধিক পরিচিত। তার আলোচিত ছবিগুলোর মধ্যে জুয়াড়ি, বাজিগর, সাগরিকা, আশা আমার আশা, হাছন রাজা, মমতাজ, গুরু ভাই, কুখ্যাত খুনি অন্যতম। এদের মধ্যে জুয়াড়ি ছবিতে খল চরিত্রে অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি। তার হাছন রাজা ছবিটিও জনপ্রিয়তা পায়। গত কয়েক বছর ধরে তাকে সিনেমায় দেখা যাচ্ছে না।

অভিনয়ের পাশাপাশি হেলাল খান রাজনীতিও করেন।তিনি জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস) কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য। তার বাড়ি সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার আলী নগরে।

শেয়ার করুনঃ