বিয়ানীবাজারঃ বিয়ানীবাজারে নতুন করে আরোও ৩ জন করো’না রোগী সনা’ক্ত হয়েছেন। এতে করে উপজেলায় করো’না রোগী বেড়ে দাঁড়িয়েছেন ৫ জনে।

আজ (মঙ্গলবার, ৫ মে) দুপুরে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বা’স্থ্য কমপ্লে’ক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আবু ইসহাক আজাদ জানান, আজ আরও ৩ জনের শরীরে করো’না পজিটিভ পাওয়া গেছে। আক্রা’ন্তদের মধ্যে প্রথমজন হচ্ছেন বিয়ানীবাজার উপজেলার প্রথম করোনা রোগী জুয়েলা’র্সের কারিগর আকবর হোসেনের সংস্প’র্শে আসাদের একজন। তিনি পৌর এলাকার নয়াগ্রাম আকবর হোসেনের সাবলেট বাসার একজন নারী। ইতোমধ্যে এ বাড়িটি লকডাউন রয়েছে। দ্বিতীয়জন ভৈরব ফেরত বিয়ানীবাজার পৌর এলাকার কসবা গ্রামের নাছের আহমদ। তিনি পেশায় একজন নির্মাণ শ্রমিক। তৃতীয়জন ঢাকা ফেরত, তিনি উপজেলার মোল্লাপুর ইউনিয়নের মোল্লাপুর বাবনটিলা এলাকার বাসিন্দা সাইদুল ইসলাম। আক্রা’ন্ত তিনজনই সুস্থ রয়েছেন বলেও জানান তিনি।

এদিকে, নতুন করে আক্রা’ন্তদের বসতবাড়ি লকডাউন করার প্রক্রিয়া চালাচ্ছেন প্রশাসন ও স্বা’স্থ্য বিভাগের দায়িত্বশীলরা।

বিয়ানীবাজারে উপজেলা স্বা’স্থ্য কমপ্লে’ক্স সূত্রে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত উপজেলার ৮৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে প্রেরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪৬জনের নমুনা নেগেটিভ ও ৫জনের পজেটিভ রিপোর্ট এসেছে। এছাড়া রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছেন আরো ৩২ জন।

গত ২৪ এপ্রিল বিয়ানীবাজারে প্রথম করো’না ভাইরাস আক্রা’ন্ত রোগী শনাক্ত হন। আক্রা’ন্ত ব্যক্তি টাঙ্গাইল জুয়েলার্সের কারিগর আকবর হোসেন টাঙ্গাইল থেকে গাজীপুর হয়ে বিয়ানীবাজারে আসেন। তার সংস্প’র্শে এসে দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে করোনায় পজেটিভ শনাক্ত হন উপজেলার দুবাগ ইউনিয়নের মেওয়া এলাকার আলম হোসেন। ৩০ এপ্রিল তার শরীরে করোনা ধরা পড়ে। আজকের রিপোর্টসহ উপজেলায় মোট ৫ জন করোনা রোগী সনাক্ত হলেন।

শেয়ার করুনঃ