আগুনের গল্প
এ কে এম আব্দুল্লাহ

হেমন্তির মায়ের চুল বেয়ে কেরোসিন নামে ফুটপাথের চুলোগুলোতে।
আর শূন্যহাড়িতে সেদ্ধ হয় নোনাজল।
ফেরিওয়ালার চিৎকার থেকে ঝরে পড়ে যে প্লাস্টিক নুডুলস।
হেমন্তির মা,সেই নুডুলস ভেঁজে দেয় মেয়াদ উত্তীর্ণ জলে।
এখন চুলোতে দাউ দাউ আগুন। যে আগুনে শিশুর কান্না পুড়ে। হেমন্তির কলিজা পুড়ে।

আর,দুর থেকে কারও চোখ পুড়ে,হেমন্তির মা’র আঁচল তলে- দুটোকরো মাংসের আগুনে।

১৬/০৩/২০১৭

শেয়ার করুনঃ