নিজস্ব প্রতিবেদক :: করোনায় আক্রান্ত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় নেয়া হচ্ছে।

তার শরীরে রক্ত চলাচল কমে গেছে। জ্বর, শ্বাসকষ্ট বাড়ছে। অতিরিক্ত অক্সিজেন লাগছে।
রোববার বিকালে এসব তথ্য জানান শহীদ সামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আবাসিক কর্মকর্তা ডা. সুশান্ত মহামাত্র।

রবিবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে তাকে ঢাকা নেয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের ব্যক্তিগত সহকারী মোহাম্মদ বদরুল ইসলাম।

এর আগে বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের উন্নত চিকিৎসার জন্য সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতা চেয়েছে স্ত্রী আসমা কামরান। তিনি নিজেও কোভিড-১৯ শনাক্ত। নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন। রোববার তিনি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে ফোনে কথা বলে এই সহযোগিতা কামনা করেন।

আসমা কামরান জানান- সিলেটের শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি তার স্বামী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হার্ট, কিডনিসহ নানা সমস্যায় ভুগছেন কামরান। এর মধ্যে তিনি কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছেন।

এর আগে গত শুক্রবার রাতে তার করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসলে শনিবার সকালে তিনি শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি হন।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমান বলেন, করোনার উপসর্গ ছাড়াও বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের ডায়বেটিসসহ নানা শারীরিক সমস্যা রয়েছে। সিলেটে অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে মেডিকেল বোর্ড গঠন করে সিলেটে তার চিকিৎসা চলছিল। তবে তার পরিবারের সদস্যদের ইচ্ছায় তাকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করানোর।

বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সুস্থতা কামনায় সকলের দোয়া কামনা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। তিনি নিজেও সিলেটবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

শেয়ার করুনঃ