এই পৃথিবীতে কিছু মৃত্যু আছে যা কেবল তাঁর প্রিয়জনদের কাঁদায়। আবার এমন কিছু মৃত্যু আছে যা প্রিয়জনদের পাশাপাশি দেশবাসীকেও কাঁদায়। কামরান ভাইর মৃত্যু শুধু আপনজন নয়, সমগ্র সিলেটবাসীকে কাঁদিয়েছে। যিনি আজীবন কাজ করে গেছেন এমন সব মানুষের জন্য, যারা নিজেদের অধিকার ও ন্যায্য পাওনার জন্য বঞ্চিত। যারা মুখ খুলতে পারেনা, যারা নিপিড়ন- নির্যাতন ও অবহেলাঅকাতরে সহ্য করে, যাদের মৃত্যুতে কেউ শোক প্রকাশ করে না, কোন উৎসব হয়না, যাদের পরিশ্রমে মাটিকে করে সিক্ত, মাঠের বুকে জাগিয়ে তোলে সোনালী ফসলের হাসি, যারা জনপথকে করে মসৃন ও প্রশস্ত, যারা কলকারখানায় চাকা খুড়িয়ে চলে সেইসব অসহায় পরিশ্রমিদের বন্ধু ছিলেন কামরান।

সুখ-দুঃখের কথা শুনার অসাধারণ নেতৃত্বের অধিকারী ব্যক্তিত্ব বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। পরকে আপন করে নেয়ার, দূরকে কাছে টেনে নেয়ার যে এক অদৃশ্য শক্তির অধিকারী, আজকাল এই গুণাবলীর মানুশ দুষ্প্রাপ্য।

তিনি দীর্ঘদিন কারাগারে থেকে নির্যাতন ভোগ করলেও কখনো রাজনৈতিক আপোষ করেননি। একজন ত্যাগী জননেতা ও অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ হিসাবে অদম্য সাহস ও প্রজ্ঞায় পরিপূর্ণ নেতৃত্বের জন্য স্বতঃস্ফূর্তভাবে বারবার তাকে প্রতিনিধিত্বের দায়িত্বভার অর্পণ করেছেন সিলেটের জনগন।

আর জনগনের কল্যাণে নিবেদিত এই নিরলস কর্মবীরের সীমাহীন আত্মত্যাগ অতুলনীয়। কামরান ভাইর কাছাকাছি যাওয়ার সুযোগ ছিল হয়তো আমার। আমিও ইউনিয়ন থেকে শুরু করে থানা-জেলা এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়সহ একটি সংগঠনের বিভিন্ন দায়িত্ব ও কার্যক্রমে দু্র্দিনে অসহায় সময়ে সরাসরি জড়িত ছিলাম এবং আজো সেই আদর্শকে মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি। যদিও আমি প্রচারবিমুখ ছিলাম। সে আদর্শই আমাকে যাওয়ার সুযোগ করে দেয়।

কামরান ভাই কোন একদিন আমাকে ফোন করলেন শোয়েব আমার কাছে একজন অসহায় মানুষ এসেছে ভাই তুমি নাহিদ ভাইকে (সাবেক শিক্ষামন্ত্রী) কথা বলে একটু সাহায্য করো। আমি বললাম আপনি করলে হবে কামরান ভাই, তিনি বললেন আমি তাঁকে এমনিতেই বিরক্ত করি, তুমি বলো। বললাম নাহিদ ভাইকে, তিনি পরের দিন বিষয়টি আন্তরিকতার সাথে সমাধান করে দিলেন। কামরান ভাইর ব্যবহার কথাবার্তা এত চমৎকার যে কাউকে আকৃষ্ট করতে পারতেন, তার কথাবার্তার ধরণ একজন নেতার মানবিক গুণাবলির পর্যায়ে।

গণমানুষের অকৃত্রিম বন্ধু, মাটির মানুষ, মাঠের মানুষ, মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা মাখা স্মৃতিতে বেঁচে থাকবেন, বেঁচে থাকবেন সিলেটবাসীর প্রতিদিনের সাথী হয়ে, বেঁচে থাকবেন মানুষের কল্যাণ কামনায়। জনসেবায় তাঁর অবদান জনগন চিরদিন স্মরণ করবে।

তাঁর মৃত্যুতে সিলেট বিভাগ একজন অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ ও ত্যাগী নেতাকে হারালো। আমি বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করি। শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই।

লেখক: রেজিস্ট্রার, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

শেয়ার করুনঃ