মৌলভীবাজার জেলা থেকেঃ বাংলাদেশের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও মৌলভীবাজারের ঐতিহ্যবাহী সরকারি কলেজের গাছ কাটার প্রতিবাদে বুধবার দুপুরে মৌলভীবাজার চৌমুহনী চত্বরে বিক্ষোভ প্রতিবাদ করেছে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন মৌলভীবাজার জেলা সংসদের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য সুবিনয় রায় শুভ’র সভাপতিত্বে ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট মৌলভীবাজার জেলা শাখার সহ-সভাপতি বিশ্বজিৎ নন্দি’র সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলা সংসদের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য সরোজ কান্তি, মৌলভীবাজার জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক পিনাক দেব ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সজীব তুষার প্রমুখ।

এছাড়াও জেলার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বে.রো.বি এর শিক্ষকসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতারকৃতদের মুক্তির দাবি জানান ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জি কে সাদিককে বহিষ্কারের তীব্র নিন্দা জানান।

বক্তারা আরো বলেন করোনার এই দূর্যোগের প্রকোপে বাংলাদেশ যখন স্তব্ধ তখন মৌলভীবাজার সরকারি কলেজে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে গাছ কেটে কলেজের পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করেছে স্বার্থান্বেষী কলেজ প্রশাসন। করোনাকালীন দূর্যোগের সময়ে দীর্ঘদিন কলেজ ক্যাম্পাস বন্ধ থাকায় ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবকে সামনে রেখে কলেজ ক্যাম্পাসের গাছ কাটা হয়। তারা প্রশ্ন রেখে বলেন ঘূর্ণিঝড় আম্পান বাংলাদেশে আঘাত হানে ২০মে, ২০২০ কিন্তু কলেজ প্রশাসন গাছ কর্তন করে ৯মে ২০২০। তাহলে কিভাবে আম্পানের প্রভাবে গাছ ভেঙে পড়তে পারে? একই সাথে কলেজ প্রশাসন মোট কয়টি গাছ কর্তন করে তা সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করেনি। এমন অনিয়মের কারণ জানতে চেয়েছেন প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতৃবৃন্দরা।

শেয়ার করুনঃ