সুশান্ত আত্মহত্যা মামলায় পুলিশকে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন রিয়া চক্রবর্তী। বৃহস্পতিবার প্রায় ৮ ঘন্টার জিজ্ঞাসাবাদ চালানোর পর পুলিশের হাতে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর কিছু তথ্য। 

মুম্বাইয়ের পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সুশান্তের সঙ্গে রিয়ার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। চলতি বছর শেষের দিকে তারা বিয়েও করতে চেয়েছিলেন। এজন্য বাড়ি খুঁজছিলেন সুশান্ত। শুধু সম্পর্কেই নয়, লিভ-ইন রিলেশনে ছিলেন তারা। লকডাউনের একটা দীর্ঘ সময় সুশান্তের বান্দ্রার ফ্ল্যাটে একসঙ্গে থাকছিলেন রিয়া-সুশান্ত। কিন্তু সুশান্তের মৃত্যুর কয়েকদিন আগেই আচমকা মনোমালিন্য হলে রিয়া সুশান্তকে ছেড়ে আলাদা হয়ে যান।

পুলিশ সূত্রে আরো জানা যায়, রিয়ার ফোন স্ক্যান করে পাওয়া গিয়েছে দু’জনের ব্যক্তিগত মুহূর্তের অসংখ্য ছবি, টেক্সট মেসেজ। এমনকি মৃত্যুর আগের রাতে ঘুমোনোর আগে রিয়াকেই শেষ বার ফোন করেছিলেন সুশান্ত। তবে রিয়ার বয়ানে বারে বারেই উঠে এসেছে সুশান্তের আচরণগত পরিবর্তনের কথা।

রিয়া পুলিশকে দেখিয়েছেন সুশান্তের পরিবর্তনের চিত্রও। অবসাদ কাটানোর চিকিৎসাও চলছিল তার। রিয়া বার বার অনুরোধ করলেও ওষুধ খেতে চাইতেন না সুশান্ত। এর আগে একই কথা জানিয়েছিলেন রিয়ার ঘনিষ্ঠ বন্ধু, লেখিকা সুহৃতা সেনগুপ্তও।


বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ সাদা পোশাকে, মুখে মাস্ক এবং হাতে গ্লাভস পরে বান্দ্রা থানায় আসেন রিয়া। ক্লান্ত, বিধ্বস্ত রিয়ার থানা থেকে বের হতে সন্ধ্যা গড়িয়ে যায়।

এদিকে মুম্বাই পুলিশ জানিয়েছে, মুম্বইয়ের প্রভাবশালী প্রযোজনা সংস্থা যশরাজ ফিল্মসকে খুব শীঘ্রই ডেকে পাঠাবেন। 

গত ১৪ জুন সুশান্তের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছিল তার ঝুলন্ত দেহ। কিন্তু এই একটি মৃত্যুই যেন আচমকাই নাড়িয়ে দিয়েছে বলিউডের আজন্মলালিত স্বজনপোষণ প্রথাকে। তার এই মৃত্যু সামনে এনে দিয়েছে বেশকিছু সত্যকে। এখন দেখার পালা ঘটনা কোন দিকে মোড় নেয়। 

সূত্র: আনন্দবাজার

শেয়ার করুনঃ