ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি:: ফেঞ্চুগঞ্জে স্বাভাবিক গতিবেগ এবং নিয়মের তোয়াক্কা ছাড়াই এখন চলাফেরা করছেন মানুষজন। এ যেন এক পুরাতন চিত্র। সাধারণ মানুষ যার যার ইচ্ছেমতো ঘুরছেন-ফিরছেন। শতাধিক মানুষকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় ১০ ভাগ মানুষ ব্যবহার করছে মাস্ক। খোলা আছে ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান।

আশ্চর্যের বিষয় করোনার সংকটেও থেমে নেই কিস্তি আদায়। ব্যাংকেও স্বাভাবিক লেনদেন। বিষয়টি চিন্তার কারণ হলেও কতটা সচেতন ও সতর্ক ফেঞ্চুগঞ্জের মানুষ এই প্রশ্ন এখন।

এ বিষয়ে কয়েকবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভূমি (এসিলেন্ড) কয়েকধাপে জরিমানা আদায় করলেও থেমে নেই মানুষের এই অস্বাভাবিক যাত্রা।

আক্রান্তের তালিকায় কম হলেও সিলেটের সবচেয়ে ছোট উপজেলা ধরতে হয় ফেঞ্চুগঞ্জকে। কারণ মাত্র ৫ টি ইউনিয়নে সীমাবদ্ধ এই উপজেলা। জনসংখ্যায় কম। তবে শিল্পনগরী খ্যাত এই উপজেলায় অস্থায়ীভাবে বসবাস করে প্রায় ৪০ হাজার মানুষ। এজন্য এই উপজেলা অনেকটা করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ভাল একটা স্থান।

তবুও মানুষের এই হিমশিম, আর স্বাভাবিক গতিবেগ যদি না থামে তবে ফেঞ্চুগঞ্জের ভবিষ্যতে কি রয়েছে তা অজানা।

মানুষ কবে সচেতন হবে? প্রশ্নটাই উত্তর ছিল নীতি নির্র্দেশনাকারীদেরও।

শেয়ার করুনঃ