প্রতীকী ছবি

জাহেদী ক্যারল, লন্ডন থেকে: করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গত ২০ মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল লন্ডনের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ পাচ মাস পর প্রথমবারের মতো স্কুলে ফিরেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের ১০ লাখ শিক্ষার্থী। আজ মঙ্গলবার থেকে খুলে গেছে ইংল্যান্ডের ৪০ শতাংশ স্কুল। বাকিগুলো এই সপ্তাহেই খুলে যাবে। তবে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে অভিভাবকরা রয়েছেন শঙ্কায়।

মঙ্গলবার শিক্ষার্থীরা স্কুল গেট দিয়ে প্রবেশের আগে শিক্ষকরা তাদের তাপমাত্রা পরীক্ষা করেছেন।

শিক্ষকদের সঙ্গে সামাজিক দূরত্বের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে স্কুলে। সুরক্ষার ব্যবস্থা হিসেবে স্কুলগুলোতে মাস্ক, গ্লাভস, অ্যাপ্রোন এবং হ্যান্ড সানিইটিসারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

শিক্ষকরা জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীরা প্রথম দিন কোনওভাবেই পড়ালেখায় মনোনিবেশ করতে পারেনি। এভাবে স্বাভাবিক পাঠ্যক্রম চালানো সম্ভব হবে না।

হোরাইজন কমিউনিটি কলেজের শিক্ষক অ্যাডাম উডওয়ার্ড এক টুইটবার্তায় বলেন, আমি কেবল ইংরেজি শিক্ষক হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার শুরু করেছি। আমি পিপিই পরে ক্লাস নিচ্ছি। এখানকার পরিবেশ এমন যে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে না। আমি নিজের ব্যাপারে ভয় পাচ্ছি, আমার প্রতিটি শিক্ষার্থীর ব্যাপারে ভয় পাচ্ছি।

শেফিল্ড হেলম বিশ্ববিদ্যালয়ের এই গ্র্যাজয়ুট নিজের মাস্ক পরা সেলফি যোগ করে বলেছেন, এভাবে ক্লাস করা আদতে সম্ভব নয়। তিনি দাবি করেন, শিক্ষার্থীরা তাকে দেখে ভয় পাচ্ছে। এ লেভেল ফল নিয়ে এমনিতেই বড় ধরণের সমালোচনার মুখে রয়েছেন ব্রিটিশ শিক্ষামন্ত্রী গেভিন উইলিয়ামসন।

শেয়ার করুনঃ