কুশিয়ারা নিউজ ডেস্কঃ ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ তারিখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেয়া ঐতিহাসিক ভাষণের দিনটিকে জাতীয় পর্যায়ে ‘ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ দিবস ২০২১’ উদযাপন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য আয়োজন হাতে নিয়েছে গোলাপগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। দিবসটি উপলক্ষে ৭ই মার্চ তারিখে উপজেলা পরিষদের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি প্রাঙ্গণে দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য আয়োজন অনুষ্ঠিত হবে।

দিবসটি উদপযাপন উপলক্ষে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ গোলাম কবিরের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাগণের অংশগ্রহণে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে সভার কার্যক্রম শুরু করা হয়।

সভার শুরুতে উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানিয়ে সভাপতি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রেক্ষাপটে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণের তাৎপর্য অনেক। ২০১৭ সালে ইউনেস্কো ঐতিহাসিক এ ভাষণকে বৈশ্বিক দলিল হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ায় আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলেও এ ভাষণের তাৎপর্য ও গুরুত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেয়া ৭ই মার্চের ভাষণের দিনটিকে জাতীয় পর্যায়ে ‘ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ দিবস’ হিসেবে ঘোষণা এবং দিবসটিকে ‘ক’ শ্রেণীর দিবস হিসেবে শ্রেণীভুক্ত করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক গত ১৫ অক্টোবর ২০২০ইং তারিখে পরিপত্র জারি করা হয়েছে। পরিপত্রে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় দিবসটি উদযাপনের উদ্যোক্তা মন্ত্রণালয় হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে মর্মে উল্লেখ রয়েছে। এ বছর থেকে দিবসটি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ব্যাপকভাবে উদযাপন করা হবে। এসময় সভাপতি উপস্থিত সকলকে জাতীয় পর্যায়ে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ দিবস উদযাপনে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অনুষ্ঠান শাখা এবং জেলা প্রশাসক, সিলেট হতে প্রাপ্ত কর্মসূচি পাঠ করে শুনান এবং প্রাপ্ত কর্মসূচির আলোকে বিস্তারিত আলোচনান্তে নিম্নোক্ত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়ঃ-

শেয়ার করুনঃ