ডাক্তারের অবহেলাঃ দিরাই হাসপাতাল ফটকের সামনেই নবজাতকের জন্ম

ডাক্তারের অবহেলাঃ দিরাই হাসপাতাল ফটকের সামনেই নবজাতকের জন্ম



দিরাই হাসপাতালে ডাক্তারের অবহেলায় ফটকের সামনেই নবজাতকের জন্ম দিলেন এক প্রসূতি মা। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে হাসপাতাল গেইটের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, রেসমিনা বেগম (২৪) নামে এক গর্ভবতীকে নিয়ে হাসপাতালে যান তার স্বামী। এসময় কর্তৃপক্ষের অবহেলায় হাসপাতালের প্রধান ফটকের পার্শ্ববর্তী সাব রেজিস্ট্রার অফিসের বারান্দায় নবজাতের জন্ম দেন ওই প্রসূতি।

রেসমিনার স্বামী উপজেলার ভাটিপাড়া ইউনিয়নের ডুলকর গ্রামের বাসিন্দা রুবেল মিয়া(৩০) জানান, সকাল ১০টার দিকে আমার স্ত্রীর প্রসব বেদনা শুরু হলে আমরা তাৎক্ষণিক দিরাই হাসপাতালে নিয়ে আসি। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আমার স্ত্রী কে যথাযথ পরীক্ষা নিরীক্ষা না করেই সিলেট নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। আমরা অনেকটা নিরুপায় হয়ে হাসপাতাল থেকে সিলেট যাওয়ার উদ্দেশ্য রওয়ানা হলে হাসপাতালের প্রধান ফটকের ৫০ গজ দূরে গাড়ির পাশে গেলে প্রসবের ব্যাথা বেড়ে যায় পরে রাস্তার পাশে অফিসের বারান্দায় নব জাতকের জন্ম হয়। বর্তমানে মা এবং নবজাতক সুস্থ আছেন। চিকিৎসকদের এমন অমানবিক আচরণ সত্যই দুঃখজনক। আমার মনে হয় চিকিৎসকরা আমাদের মতো গরীব অসহায় লোকদের সাথে সবসময় এমনটাই করে থাকেন। যদি আমাদের উপরে কোনো চ্যানেল থাকতো হয়তো তারা এভাবে কোনো পরীক্ষা নিরীক্ষা না করে সিলেট পাঠাতেন না। আমরা সেবা নিতে এসে কষ্ট নিয়ে গেলাম। আমি বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জানাব।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা স্বাধীন কুমার দাস বলেন, কর্তব্যরত চিকিৎসক কে ছিল আমার জানা নেই, আমি বিষয়টি দেখছি।
Previous Post Next Post