Previous
Next

সর্বশেষ

Friday, 18 November 2022

বুধবারীবাজারে বিনামূল্যে সরিষা-সবজি বীজ বিতরণ

বুধবারীবাজারে বিনামূল্যে সরিষা-সবজি বীজ বিতরণ


গোলাপগঞ্জের বুধবারীবাজার ইউনিয়নে অনাবাদি জমিকে চাষের আওতায় আনার লক্ষ্যে উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে বিনামূল্যে সরিষা ও সবজি বীজ বিতরণ এবং কৃষক উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ইউনিয়ন পরিষদের কক্ষে এ বিতরণ অনুষ্ঠানে গোলাপগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ মাশরেফুল আলমের সভাপতিত্বে ও উপ সহকারী কৃ‌ষি অফিসার মোস্তফা আল কিব‌রিয়া এর প‌রিচালনায় পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঞ্জুর কাদির শাফি চৌধুরী এলিম।

তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, আগামী বছর বিশ্বে খাদ্য সংকট দেখা দিতে পারে। বাংলাদেশেও এই খাদ্য সংকটে পড়তে পারে। এজন্য জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকলকে খাদ্যের উৎপাদন বাড়াতে নির্দেশ দিয়েছেন। বাংলাদেশে যাতে এ ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয় সেজন্য এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বুধবারীবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ হেলাল উদ্দিন, সহকারী কৃষি অফিসার বিল্লাল হোসেন, উপ‌জেলা আওয়ামী লী‌গের সাংস্কৃ‌তিক সম্পাদক আবু সু‌ফিয়ান আজম, বুধবারীবাজার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মস্তাকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আফতার হোসেন।

বক্তব্য রাখেন বুধবারীবাজার ইউ‌নিয়ন আওয়ামী লী‌গের সহ সভাপ‌তি কামাল উ‌দ্দিন, সি‌লেট জেলা‌ যুবলীগ নেতা শা‌হিন আহমদ, ইউ‌নিয়ন যুবলীগের সভাপ‌তি রাজু আহমদ, ইউ‌নিয়ন ছালত্রলীগ সভাপ‌তি হা‌লিমুর রশীদ রাপু প্রমুখ। 

Sunday, 13 November 2022

বুধবারীবাজার ইউনিয়ন ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট ইউকে'র দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত

বুধবারীবাজার ইউনিয়ন ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট ইউকে'র দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত


সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার বুধবারীবাজার ইউনিয়নের যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের সামাজিক সংগঠন বুধবারীবাজার ইউনিয়ন ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট ইউকে'র দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন ও সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (৬ নভেম্বর) পূর্ব লন্ডনের একটি অভিজাত হলরুমে এ সাধারণ সভা ও দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবারীবাজার ইউনিয়ন ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট ইউকে'র আহবায়ক মকলু মিয়ার সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব এ.কে.এম আব্দুল্লাহর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সকল ট্রাস্টিবৃন্দ ও বুধবারীবাজার ইউনিয়নের যুক্তরাজ্য প্রবাসীগণ।

সাধারণ সভায় সংগঠনের বিগত দিনের সকল কার্যক্রম তুলে ধরেন এ.কে.এম আব্দুল্লাহ।

সভায় বক্তব্য রাখেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল শুক্কুর, ফানু মিয়া, মোস্তফা মিয়া, ফজলুল হক ফজলু, মাইজ উদ্দিন আহমেদ, সেলিম আহমেদ খান, আনোয়ার উদ্দিন পংকি, জয়নাল উদ্দিন, আফসার হোসেন এনাম, জহির হোসেন গৌছ, মজির উদ্দিন, আব্দুল কাইয়ুম হান্নান, সামস উদ্দিন খান, শাহ সাইফুল আলম রাজা, বেলাল মাদারী, ফখরুল ইসলাম নজরুল, আব্দুল আহাদ-সহ আরোও অনেকে।

সাধারণ সভায় উপস্থিত সকলেই সংগঠনের কার্যক্রমে সন্তষ প্রকাশ করেন এবং সংগঠনের মূল লক্ষে পৌঁছুতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

সভা শেষে ২য় পর্বে অনুষ্ঠিত হয় দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন। নির্বাচন পরিচালনা করেন মোস্তফা মিয়া, ফানু মিয়া, ফজলুল হক ও জয়নাল উদ্দিন। এতে সকলের সম্মতিক্রমে মকলু মিয়াকে সভাপতি এবং এ.কে.এম আব্দুল্লাহকে সাধারণ সম্পাদক ও আলম খানকে ট্রেজারার করে আগামী দুই বছরের জন্য ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট্য একটি কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়।

সংগঠনের নের্তৃবৃন্দরা জানান, ইউনিয়নের উন্নয়ন, স্বাস্থ্যসেবা প্রদান ও একটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য নিয়ে ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয় সংগঠনটি। এসময় নবনির্বাচিত সভাপতি মকলু মিয়া জানান, আমাদের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে বুধবারীবাজার ইউনিয়্নের দরিদ্র ও অসচ্ছল মানুষজনকে সেবা প্রদান করা। সংগঠনের শুরুতেই একটি ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে জানিয়ে তিনি এ সংগঠনটির জন্য সকলের দোয়া কামনা করেন।

Wednesday, 2 November 2022

খালেদা জিয়ার ভোটে দাঁড়ানোর বিষয়ে যা বললেন সিইসি

খালেদা জিয়ার ভোটে দাঁড়ানোর বিষয়ে যা বললেন সিইসি


আগামী বছরের শেষে অথবা জানুয়ারিতে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। নির্বাচনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অংশগ্রহণের সুযোগ নিয়ে বিতর্ক আগে থেকেই। খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বলছেন, আগামী নির্বাচনে বেগম জিয়া অংশগ্রহণ করবেন। তবে, সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল বলছেন, খালেদা জিয়া নির্বাচনে দাঁড়ানোর বিষয়টি পরীক্ষা করে দেখা হবে।

বুধবার (২ নভেম্বর) নির্বাচন কমিশনের সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সিইসি এ তথ্য জানান।

হাবিবুল আউয়াল বলেন, খালেদা জিয়ার নির্বাচনে দাঁড়ালে তখন আইনানুগভাবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। এটা যখন হবে তখন দেখা যাবে। সবকিছু আইন অনুযায়ী হবে। এখন অ্যাডভান্স কোনও কথা বলতে পারবো না।

এদিকে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বারবার বলে আসছেন, দেশের প্রচলিত আইন ও সংবিধান অনুযায়ী, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত খালেদা জিয়ার অংশগ্রহণের সুযোগ নেই।

উল্লেখ্য, খালেদা জিয়া ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত প্রতিটি নির্বাচনে প্রার্থী নিয়ে সংসদে প্রতিনিধিত্ব করে আসছিলেন।

Tuesday, 1 November 2022

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি পরিস্থিতি নিয়ে সংসদে উত্তাপ

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি পরিস্থিতি নিয়ে সংসদে উত্তাপ


দেশে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংকটসহ এ খাতে অনিয়ম, দুর্নীতির পাশাপাশি সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে মঙ্গলবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে উত্তপ্ত আলোচনা হয়েছে। প্রশ্নোত্তর পর্বে এ বিষয়ে আলোচনা করেন বিএনপিদলীয় সদস্য মো. হারুনুর রশীদ। তিনি বলেন, ‘বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সেক্টরে লুটপাট চলছে, ভয়ানক অরাজকতা চলছে। একদিন সময় দিন, সংসদে আলোচনা হোক। আমরা আলোচনা করব।’

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া সংসদ অধিবেশনে সম্পূরক প্রশ্নের সুযোগ নিয়ে মো. হারুনুর রশীদ আরও বলেন, ‘প্রতিমন্ত্রী মহোদয়ের প্রশ্নোত্তর অন্তত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের কথা ৫০ বার বলেছেন। প্রসঙ্গ ছাড়াই তিনি এটা বলেছেন। দয়া করে আপনি জানাবেন, বিএনপি আমলে বিদ্যুতের দাম কত ছিল, গ্যাসের দাম কত ছিল? দায়মুক্তি কেন এখনো বহাল রেখেছেন।’

পরে রেন্টাল-কুইক রেন্টাল কোম্পানিকে ৮৬ হাজার কোটি টাকা দেওয়ার সত্যতা জানতে চান জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু।

জবাবে সাধারণ আলোচনার পক্ষে একমত প্রকাশ করেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। তিনি বলেন, ‘জোট সরকারের আমলে দিনে ১৭ ঘণ্টা দেশ অন্ধকারে ছিল। বিদ্যুৎ চাওয়ায় গুলি করে মানুষ হত্যা করা হয়েছে।’ 

এর আগে হারুনুর রশীদ বলেন, ‘ভূতের মুখে রাম নাম মানায় না। আমি স্পষ্ট জানতে চাচ্ছি, বিএনপি সরকার যে গ্যাসের চুক্তি করেছিল এমন কোনো চুক্তির প্রমাণ আপনার কাছে আছে কি না? থাকলে সেটা এ সংসদে উত্থাপন করবেন। 
দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘বিএনপির আমলে চালের দাম কত ছিল? একটি ডিমের দাম কত ছিল? দুধের কেজি কত ছিল? এ উত্তরগুলো সংসদে দেন। শুধু দায়ী করলে হবে না।’

তিনি বলেন, ‘মাননীয় স্পিকার, আপনি সময় নির্ধারণ করে দেন। শুধু জ্বালানি সেক্টর নিয়ে আলোচনা হোক। আজকে মানুষের মধ্যে হাহাকার চলছে। তারা বিদ্যুৎ পাচ্ছেন না। আজকে জ্বালানি উপদেষ্টা বলছেন, দিনের বেলায় বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে না। এটা কী হচ্ছে? আগামীতে বিদ্যুৎ-গ্যাসের দাম আর বাড়াব না, আপনি সেই আশ্বাস দেন।’

হারুনুর রশীদের এই বক্তব্যে সরকারদলীয় সদস্যরা হৈ চৈ শুরু করেন। একপর্যায়ে স্পিকার হারুনুর রশীদকে থামানোর চেষ্টা করেন। স্পিকার তাকে প্রশ্ন করার অনুরোধ জানালে হারুনুর রশীদ বলেন, ‘আমি জোট সরকারের আমলে চাল, তেল, ডিম, বিদ্যুতের দাম কত ছিল- তা জানতে চাই।’এরপর প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জবাব দেন। 

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, সংসদ সদস্য অনেক উত্তেজিত হয়েছেন। সত্য কথা অনেকে সহজভাবে নিতে পারেন না। আমিও চাই সংসদে একদিন সময় দেওয়া হোক। জ্বালানি নিয়ে আলোচনা হোক। নাইকো মামলা নিয়ে যে পরিমাণ তথ্য আমাদের হাতে আছে, তাদের নেতা তারেক জিয়ার বন্ধু যে পরিমাণ সাক্ষাৎকার এফবিআইয়ের কাছে দিয়েছেন, তার রেকর্ড আমরা তুলে ধরতে চাই। সিদ্ধিরগঞ্জ পাওয়ার প্ল্যান্টে যে পরিমাণ চুরি হয়েছে, সেই তথ্য-প্রমাণও আমাদের হাতে আছে। আমরা সেগুলো এ সংসদের স্ক্রিনে দেখাতে চাই। খাম্বা কোম্পানি তৈরির পর লুটপাটের হিসাবও আমাদের কাছে আছে। নির্বাচন সামনে আসছে, প্রস্তুত থাকুন সবকিছু আমরা দেশবাসীকে দেখাব।

তিনি আরও বলেন, জোট সরকারের আমলে সবাই ১৭ ঘণ্টা অন্ধকারে ছিলেন। আর উনি বিদ্যুতের দামের কথা বলেন। অন্ধকারে থাকার যে সংকট, সেই কষ্টের কথা বলেন। সেই সময় বিদ্যুতের অপচয় ছিল ৪৪ শতাংশ। এ অপচয়টা দুর্নীতির মধ্যে পড়ে। পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন তারা। বিদ্যুৎ চাওয়ার কারণে কানসাটে গুলি করে মানুষ হত্যা করা হয়েছে। খাদ্যই তো দিতে পারেননি, দাম নিয়ে আলোচনা কী হবে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা আলোচনা চলবে। লজ্জা-শরম নেই বলেই তারা এ আলোচনা করেন।

এরপর সম্পূরক প্রশ্ন উত্থাপনকালে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, আমরা লোডশেডিংয়ের মধ্যে আছি। আশা করছিলাম এ পরিস্থিতির উন্নতি হবে। কিন্তু এর মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা জানালেন, আগামীতে দিনের বেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হতে পারে। জানি না কী পরিস্থিতি তৈরি হবে। তিনি বলেন, পত্র-পত্রিকায় দেখলাম বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য বেসরকারি কোম্পানি রেন্টাল-কুইক রেন্টাল কোম্পানিকে ৮৬ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। আবার সঞ্চালন লাইনের অভাবে তাদের কাছ থেকে বিদ্যুৎ নেওয়া যাচ্ছে না। আসলে পরিস্থিতি কী তা জানানো দরকার।

জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, বেসরকারি কোম্পানিকে ক্যাপাসিটি চার্জ বাবদ কত দেওয়া হয়েছে- তা জানার জন্য চিঠি দিতে হবে। জ্বালানি উপদেষ্টা পরিস্থিতি খারাপ হলে দিনের বেলা বিদ্যুৎ বন্ধের কথা বলেছেন। কিন্তু সেই অবস্থা এখনো তৈরি হয়নি। আমরা ভালোর দিকে যাচ্ছি। তিনি বলেন, সঞ্চালন লাইনের কোনো সমস্যা নেই। সমস্যা জ্বালানির। সেই সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চলছে।

অবশ্য এর আগেই বিদ্যুৎ ও জ্বালানি পরিস্থিতি নিয়ে সংসদে কথা বলেন বিএনপির সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। তিনি বলেন, ‘রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে বাংলাদেশের ব্যয় হচ্ছে সোয়া এক লাখ কোটি টাকা। আর একই ধরনের একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে ভারতের ব্যয় হচ্ছে ২৮ হাজার কোটি টাকা।’

পাকিস্তান আমলে ভূমি অধিগ্রহণ সত্ত্বেও কেন চারগুণ বেশি ব্যয় হচ্ছে? কাতারসহ অন্য দেশ থেকে সুযোগ থাকা সত্ত্বেও স্পট মার্কেট থেকে কেন জ্বালানি কেনা হচ্ছে’- তা জানতে চান তিনি। 
সিলেটে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্যের মৃত্যু

সিলেটে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্যের মৃত্যু


সিলেটে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় এক পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে সিলেট- এয়ারপোর্ট সড়কে লাক্কাতুরা এলাকায় দাঁড়িয়ে থাকা একটি লড়ির সঙ্গে ধাক্কা লেগে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত পুলিশ সদস্যের নাম সুমন কুমার সিংহ (৩০)। তিনি সিলেটের জালালাবাদের শিবেরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে কনস্টেবল পদে কর্মরত ছিলেন। সুমন মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার জলারপাড় গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় আরও দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নিহত সুমন কুমার সিংহসহ আরও দুজন সোমবার রাত ২টার দিকে সিলেট থেকে বিমানবন্দরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে লাক্কাতুরা এলাকায় পৌঁছালে সড়কের পাশে বিদ্যুতের খুঁটি বহন করা একটি লরির পেছনে ধাক্কা দেয় মোটরসাইকেলটি। এতে সুমনসহ আরও এক মোটরসাইকেল আরোহী আহত হন। আরও জানা গেছে, পরে পথচারীসহ আশপাশের লোকজন তাদের উদ্ধার করেন। সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৩টার দিকে তিনি মারা যান।

সিলেট এয়ারপোর্ট থানার ওসি মাঈনুল জাকির বলেন, সড়কে বিদ্যুতের খুঁটি বহনকারী একটি লরির পেছন দিকে মোটরসাইকেলটি ধাক্কা দেয়। এতে পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হন। পরে তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহতের লাশ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। 
বুধবারীবাজার ইউনিয়নে ১নং ওয়ার্ডে রাস্তার উন্নয়নকাজ সম্পন্নঃ পরিষদের সবাই মিলে উদ্বোধন

বুধবারীবাজার ইউনিয়নে ১নং ওয়ার্ডে রাস্তার উন্নয়নকাজ সম্পন্নঃ পরিষদের সবাই মিলে উদ্বোধন


গোলাপগঞ্জের ০৫নং বুধবারীবাজার ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে অবহেলিত একটি কাঁচা রাস্তার উন্নয়নকাজ সমাপ্ত হয়েছে। ১নং ওয়ার্ডের কটলীপাড়া ফয়জুর রহমান মিয়ার বাড়ির নিকট হতে জীতেন্দ্র বিশ্বাসের বাড়ির নিকটবর্তী কালভার্ট পর্যন্ত ৫০মিটার দৈর্ঘের এ রাস্তাটির ইটসলিং-এর কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

উন্নয়নকাজ সমাপ্ত হওয়ায় আজ (০১ নভেম্বর) দুপুরে গুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটির উদ্বোধন করেন বুধবারীবাজার ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন।

উদ্বোধন শেষে তিনি বলেন, আমাদের নতুন পরিষদের প্রথম কাজ উদ্বোধন হওয়ায় আমরা সকলেই আনন্দিত। এসময় তিনি রাস্তাটির উন্নয়নকাজ দ্রুততার সহিত সফল ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করায় ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য প্যানেল চেয়ারম্যান এনাম উদ্দিনকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এছাড়া নবনির্বাচিত পরিষদকে নিয়ে ইউনিয়নের সকল সমস্যা দূর করে মডেল একটি ইউনিয়ন গঠনের প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেন তিনি। এজন্য তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

রাস্তাটির উন্নয়নকাজের প্রকল্প সভাপতি, ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য এবং প্যানেল চেয়ারম্যান-০১ এনাম উদ্দিন বলেন, বহুদিনের কাঙ্খিত এ রাস্তাটির উন্নয়নকাজ সম্পন্ন হওয়ায় ওয়ার্ডবাসী খুশি হয়েছেন। নতুন পরিষদের প্রথম কাজ উদ্বোধন করায় তিনিও আনন্দ প্রকাশ করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সচিব ফয়জুল ইসলাম ফয়েজ,  বিশিষ্ট মুরব্বী আসাব আলী, মাহবুবুর রহমান, সাবেক মেম্বার জামাল উদ্দিন, ২নং ওয়ার্ডের সদস্য হেলাল উদ্দিন খান, ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য সামছুল ইসলাম কয়েছ, ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য জাহেদুর রহমান মৌলা, ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য উস্তার আলী, ৮নং ওয়ার্ডের সদস্য সালমান কাদের, ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য হাবীবুর রহমান সারুক, ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য আফিয়া বেগম, ইউনিয়নের হিসাব সহকারী দেবাশিষ দেব, উদ্যোক্তা টিপু আহমদ, সমাজসেবী ফখরুল ইসলাম, বাইছ উদ্দিন, বিলাল উদ্দিন, আব্দুল মুনিম লুলু প্রমুখ।।

Saturday, 27 August 2022

গোলাপঞ্জের যুবককে বিয়ানীবাজারে মারধর: প্রতিবাদে সভা ও বিক্ষোভ মিছিল

গোলাপঞ্জের যুবককে বিয়ানীবাজারে মারধর: প্রতিবাদে সভা ও বিক্ষোভ মিছিল



গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি: গোলাপগঞ্জ উপজেলার বুধবারীবাজার ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মস্তাব উদ্দিন কামালের ছেলে সৈকত আহমদকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে বিয়ানীবাজারে মারপিটের ঘটনার প্রতিবাদে ও এর সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে বিক্ষুব্ধ ইউনিয়নবাসী। 

শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় চন্দরপুর মস্তফা কমিউনিটি সেন্টারের পাশে প্রথমে প্রতিবাদ সভা ও পরে এখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। এরপর মিছিলটি চন্দরপুর সেতুতে এসে শেষ হয়।

মিছিল পূর্ববর্তী প্রতিবাদ সভায় সমাজসেবী রফিক উদ্দিনের  সভাপতিত্বে ও রেজাউল কবিরের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন বুধবারীবাজার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল গফুর,  সমাজসেবী আব্দুল হালিম লিপন, সাইদুল ইসলাম লাল, ইউপি সদস্য জাহেদুর রহমান মৌলা, শিপু ইসলাম, খাইরুল ইসলাম, ইউপি সদস্য সালমান কাদের দিপু, আশরাফুল কবির প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, বুধবারীবাজার ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান মস্তাব উদ্দিন কামালের ছেলে সৈকত আহমদকে পরিকল্পিতভাবে একটি মহল হেয় প্রতিপন্ন করতে বিয়ানীবাজারের কয়েকজন সন্ত্রাসী দিয়ে মারধর ও হেনস্থা করেছে। এরপর তারা এই মারধরের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছেড়ে দেয়৷ এ ঘটনায় বিয়ানীবাজার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ এখনো এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তার করেনি।

বক্তারা অতিসত্বর এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির জোর দাবি জানান।