করোনায় মৃত হিন্দু ব্যক্তির লাশ ফেলে রাখেন স্বজনরা, শেষকৃত্য করলেন ৪ মুসলিম যুবক

করোনায় মৃত হিন্দু ব্যক্তির লাশ ফেলে রাখেন স্বজনরা, শেষকৃত্য করলেন ৪ মুসলিম যুবক



মহামারী করোনা ভাইরাসে মৃত্যু হওয়া হিন্দু এক ব্যক্তির শেষকৃত্য করে মানবতার নজির গড়েছেন কুষ্টিয়ার ৪ মুসলিম যুবক।

রোববার (৪ জুলাই) মিরপুর পৌর মহা শ্মশানে তাকে সমাহিত করেন এ যুবকরা। তারা হলেন- মিরপুর পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডে বাসিন্দা রাজিব, সুমন খান, সলেমান, রুবেল।

জানা গেছে, করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়ায় গত ৩ জুলাই হিন্দু ধর্মের প্রফুল্ল কর্মকার (৭০) কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩ জুলাই মারা যান তিনি। পরে স্বজনরা তার মরদেহ অ্যাম্বুলেন্সে করে সুলতানপুর গ্রামের পৌর মহাশ্মশানে নিয়ে যান। কিন্তু শ্মশান কর্তৃপক্ষ মরদেহের শেষকৃত্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে গেটের চাবি রেখে চলে যান।

পরে সময়ক্ষেপণ হওয়ায় গাড়ি চালক মরদেহটি গোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে ফেলে রেখে চলে যান। গভীর রাতে সবাই ফেরত গেলেও ফেরত যাননি একজন। তিনি মৃত্যুবরণকারী ব্যক্তির স্ত্রী।


শ্মশানের পাশে গোপালপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বারান্দায় স্বামীর লাশ সৎকার করতে একাই পার করেন সারারাত। মধ্যরাত থেকে সকাল অবধি অপেক্ষা করেও লাশ সৎকারে শ্মশান কমিটি বা নিজ আত্মীয়-স্বজনের সাহায্য না পেয়ে স্থানীয় ৪ মুসলিম যুবক তাকে মিরপুর পৌর মহা শ্মশানে সমাহিত করেন।

Previous Post Next Post