নৌকার ধাক্কায় ভেঙ্গে পড়লো বিশাল ব্রিজ

নৌকার ধাক্কায় ভেঙ্গে পড়লো বিশাল ব্রিজ



ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার বনগজ-কৃষ্ণনগর সংযোগ খালের ওপর নির্মাণ করা হয়েছিল একটি সেতু। কিন্তু দুই পাশে সংযোগ সড়ক না থাকায় সেতুটি দিয়ে পার হতে পারেনি কোনো যানবাহন। সেতু ব্যবহার করে যাতায়াত করেননি কোনো মানুষও। শুক্রবার সকালে ইটবাহী একটি নৌকা ধাক্কা দিলে ভেঙে যায় দুই যুগ ধরে কাজে না লাগা সেতুটি।

সকাল সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের বনগজ ও চরনারায়নপুর গ্রামের মধ্যবর্তী স্থানে খালের ওপরে থাকা সেতুটি ভেঙে যায়। এতে নৌকায় থাকা দুই শ্রমিক সামান্য আহত হয়েছেন। তারা হলেন নৌকার মালিক আব্দুল খালেক এবং হাবিব। তাদের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের রাজবাড়িয়া গ্রামে।

জানা গেছে, বনগজ-কৃষ্ণনগর সংযোগ খালের ওপর প্রায় দুই যুগ আগে সেতুটি নির্মাণ করা হয়। তবে সেতুর দুই পাশে সড়ক না থাকায় সেতুটি দিয়ে যানবাহন এবং মানুষ চলাচল করতে পারত না। এর ফলে বনগজ ও কৃষ্ণনগর গ্রামের মানুষ বর্ষার সময় নৌকায় এবং অন্য সময়ে পানি ভেঙে খালটি পার হন। এতে তাদের চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়।

শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সেতুর তিনটি পিলারের উপরের অংশ ভেঙে কাত হয়ে নৌকার ওপর পড়ে আছে। কিছু অংশ ইটবোঝাই নৌকার ওপর পড়ে আছে।

নৌকার শ্রমিক সফর আলী বলেন, সকাল ৭টার দিকে জেলার শাহবাজপুর ডিজিটাল ব্রিকফিল্ড থেকে ৭ হাজার ইট নিয়ে একটি নৌকা আখাউড়ার ঘোলখার এলাকায় যাচ্ছিল। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সেতুটির কাছে পৌঁছার পর প্রবল স্রোতের কারণে মাঝি নৌকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এতে নৌকাটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে সেতুটির একটি অংশ নৌকার ওপর ভেঙে পড়ে।


বনগজ গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল্লাহ বলেন, ‘আমি নৌকা নিয়ে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ দেখি নৌকাটি ঘুরতে ঘুরতে সেতুর পিলারে ধাক্কা দেয়। এতে সেতুটি ভেঙে পড়ে যায়।

নৌকার মালিক সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের রাজবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল খালেক জানান, নৌকায় ১১জন লোক ছিল। তাদের মধ্যে দুইজন আহত হয়েছেন।

সূত্র : ঢাকা পোস্ট
Previous Post Next Post
>
>