গোলাপগঞ্জে স্বামীকে কুপিয়ে হাসপাতালে পাঠালেন স্ত্রী

গোলাপগঞ্জে স্বামীকে কুপিয়ে হাসপাতালে পাঠালেন স্ত্রী




গোলাপগঞ্জে দা দিয়ে কুপিয়ে প্যারালাইসিস রোগে আক্রান্ত স্বামী হাবিবুর রহমান ওরফে তোফায়েল নামে একজনকে হাসপাতালে পাঠিয়েছেন স্ত্রী। এ ঘটনার পরপরই অভিযান চালিয়ে স্ত্রী রুবিনা বেগমকে (৩৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার (২২ আগস্ট) দুপুর ১ টার দিকে উপজেলার বাঘা ইউনিয়নের জালালনগর মাঝপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। হাবিবুর রহমান ওরফে তোফায়েল বাঘা ইউনিয়নের জালালনগর মাঝপাড়া গ্রামের সুলতান মিয়া ওরফে ময়না মিয়ার ছেলে।

 
এ ঘটনায় আহতের ছোট ভাই মাও অলিউর রহমান (৪০) বাদি হয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় একটি (মামলা নং- ২৩) দায়ের করেন।
 
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আহত হাবিবুর একজন প্যারালাইসিস আক্রান্ত রোগী। ধারনা করা হচ্ছে তাদের মধ্যে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলছিল। রোববার দুপুরে এ নিয়ে কথা-কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রী তার স্বামীকে দা দিয়ে আঘাত করেন। এসময় আশংকাজনক অবস্থায় আহত হাবিবুর রহমানকে উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে আশংকাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন।

বাঘা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সানা মিয়া বলেন, আমরা আহত হাবিবুর রহমানের স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করেছিলাম সমস্যা কি নিয়ে। মহিলা জানায়, তার স্বামী নাকি আরেকটি বিয়ে করেছে। বিয়ে করা স্ত্রীকে বাড়িতে নিয়ে আসে। সব সময় স্বামী তার উপর নির্যাতন চালায়। শরীরে বিভিন্ন জায়গায় ইনজেকশন পোষ করে। শরীর থেকে কামড় দিয়ে মাংস তুলে নেয়। চেয়ারম্যান বলেন, মহিলার শরীর থেকে মাংস নেয়ার কোন চিহ্ন আমরা দেখতে পাইনি।

 
গোলাপগঞ্জ মডেল থানার এসআই ফয়জুল করিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার পরপরই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। আসামি আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এঘটনায় গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
Previous Post Next Post
>
>