শ্বশুরবাড়ি থেকে আম-কাঁঠাল কম দেয়ায় স্ত্রীকে রড দিয়ে পিটিয়ে জখম

শ্বশুরবাড়ি থেকে আম-কাঁঠাল কম দেয়ায় স্ত্রীকে রড দিয়ে পিটিয়ে জখম



শ্বশুরবাড়ি থেকে মৌসুমি ফল আম-কাঁঠাল কম দেয়ায় স্ত্রীকে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে পাষণ্ড এক স্বামী। এ ঘটনায় সোমবার (২৮ জুন) অভিযুক্ত স্বামী এয়াকুবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এর আগে রোববার (২৭ জুন) দিবাগত রাতে ফেনীর পরশুরামের বক্সমাহমুদ ইউনিয়নের সাতকুচিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার এয়াকুব আলী সাতকুচিয়া গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্র জানায়, পাঁচ বছর আগে এয়াকুব আলীর সঙ্গে উত্তর চন্দনা এলাকার ফারজানা আক্তার সুমির বিয়ে হয়। তাদের সংসারে এক ছেলেসন্তান রয়েছে। কিছুদিন ধরে এয়াকুব তার স্ত্রীর পরিবারের কাছে চার লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আসছিলেন। এয়াকুব মাদকাসক্ত। রাতে নেশা করে এসে প্রায়ই স্ত্রী ফারজানাকে মারধর করতেন। রোববার বিকেলে ফারজানার বাবার বাড়ি থেকে মৌসুমি ফল আম, কাঁঠাল ও আনারস পাঠানো হয়। পরিমাণে কম দেয়া হয়েছে অভিযোগ এনে স্ত্রীকে রড দিয়ে পেটান এয়াকুব। এতে ফারজানা মারাত্মক আহত হন। তাৎক্ষণিক স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ ফারজানা আক্তার জানান, এয়াকুব নিয়মিত মাদক সেবন করেন এবং প্রায়ই তাকে মারধর করেন। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার সালিশ বসলেও তিনি সংশোধন হননি।

পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক রোকসানা সুরাইয়া জানান, ফারজানার মাথা, হাত-পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

এ বিষয়ে পরশুরাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মু. খালেদ দাইয়ান জানান, স্ত্রীকে নির্যাতনের ঘটনায় এয়াকুবকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Previous Post Next Post